বিশ্বের ভয়ংকর ৩ টি রাস্তা যা দেখলে আপনার মাথা ঘুরে যাবে। ভয়ংকর রাস্তা

বিশ্বের ভয়ংকর ৩ টি রাস্তা যা দেখলে আপনার মাথা ঘুরে যাবে।

রাস্তা যেমন সুন্দর মনোরম হয় তেমনি ভয়ংকর রাস্তাও রয়েছে অনেক দেশে।তেমনি ভয়ংকর ৩ টি রাস্তা সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হলো।

১ / ইউঙ্গাস রোড বা ডেথ রোড,বলিভিয়া।

ভয়ংকর এই মৃত্যুপুরী রাস্তা টি ওখানকার জনমুখে “ডেথ রোড” নামেই বেশি পরিচিত। ইউঙ্গাস রোড বা ডেথ রোড টি রোড’ ৪৩ মাইলের দৈর্ঘ্য জুড়ে, বলিভিয়ার রাজধানী কোরিকো এবং পাহাড়ি অঞ্চল লা পাজকে সংযুক্ত করেছে।
রাস্তা টি ভূপৃষ্ঠতল থেকে ৪,৬৫০ মিটার (১৫,২৫৬ ফুট) উঁচু দিয়ে আঁকা বাঁকা মোড় নিয়ে চলে গেছে। এই রাস্তা দিয়ে গাড়ি চালকরা প্রায়ই মেঘ দেখতে পায় গাড়ির আশেপাশে। বর্ষা কালে রাস্তা টির সবচেয়ে ভয়ঙ্করী রুপ দেখা যায়। রাস্তা টিতে ২০০ টিরও বেশি ভয়ংকর মোড় রয়েছে যা প্রায় ৮৫ ডিগ্রি কোনের মতো।

ইউঙ্গাস রোড বা ডেথ রোডের সবচেয়ে ভয়ংকর ঘটনাটি হলো একটি বাস গিরিখাতে পরে গিয়েছিল যার ফলে ১০০ জন যাত্রী মারা গিয়েছিল। যা ছিল বলিভিয়ার সবচেয়ে ভয়াবহ সড়ক দুর্ঘটনা। ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত রাস্তাটি ব্যবহার করার সময় প্রতি বছর প্রায় ৩০০ জন ভ্রমণকারী মারা গিয়েছিলেন।

২/ কারাকোরাম হাইওয়ে বা কেকেএইচ,চীন-পাকিস্তান।

সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৪,৬৯৩ মিটার (১৫,৯৭৭ ফুট) উপরে অবস্থিত কারাকোরাম হাইওয়ে বা কেকেএইচ, যা চীন ও পাকিস্তানকে মোট ৮০০ মাইলের মধ্যে সংযুক্ত করে। এর নির্মাণ কাজ ১৯৫৯ সালে শুরু হয়েছিল এবং ১৯৮৬ সালে সম্পন্ন হয়েছিল, তবে এটির নির্মাণকাজ চলা কালীন ৮১০ জন পাকিস্তানি এবং ৮২ জন চীনা শ্রমিক প্রাণ হারিয়েছিল। এই রাস্তাটি বিশ্বের অষ্টম আশ্চর্য উপাধি অর্জন করেছে, তবে সাম্প্রতিক সময়ে পর্যটক এবং স্থানীয়দের জীবনকে একইভাবে মারাত্মকভাবে প্রভাবিত করেছে। ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে , একটি যাত্রীবাহী বাস একটি গভীর খাদে পড়ে ১৭ জন ঘটনাস্থলেই নিহত হয়েছিল। একই বছর, কুখ্যাত এই হাইওয়েতে একটি ভ্যানে ধসে পড়ে একজন পর্যটক মারা গিয়েছিলেন এবং তিন জন আহত হয়েছিল।

৩/ সিচুয়ান-তিব্বত মহাসড়ক।

চীনে অবস্থিত এই ৪,০০০ মিটার (১৩,১২৩ ফুট) গড় উচ্চতার রাস্তা টি সিচুয়ান-তিব্বত মহাসড়ক বিশ্বের অন্যতম বিপদজনক রাস্তা হিসাবে পরিচিতি লাভ করেছে।

সিচুয়ানের চেংডুতে শুরু হওয়া ১,৩৩০ মাইল পথ জুড়ে ভূমিধ্বস এবং পাথরের অগ্ন্যুৎপাতের মধ্য দিয়ে সাধারণ ভাবে তিব্বতের লাসা তে শেষ হযেছে রাস্তাটি। মহাসড়কের দৈর্ঘ্য বরাবর একবার ভ্রমণ করতে প্রায় ১৫ দিন পর্যন্ত সময় লেগে যায়।

২০১১ সালে একটি বাস হাইওয়ে থেকে পড়ে যায়, যার ফলে ১৬ জন যাত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যু ঘটে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page